দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে সিলেটের ৬ টি আসেনের ৪৭ প্রার্থীর মধ্যে ১৪ জনের প্রার্থীতা বাতিল করা হয়েছে। আর স্থগিত করা হয়েছে ২ প্রার্থীর মনোনয়ন। রোববার (০৩ ডিসেম্বর) মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে সিলেট জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক শেখ রাসেল হাসান এ ঘোষনা দেন। এই ১৬ জন ছাড়া বাকিদের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা। (১) সিলেট-১ আসনে;আওয়ামী লীগের ড. এ কে আবদুল মোমেন,জাকের পার্টির মো. আবদুল হান্নান, ইসলামী ঐক্যজোটের ফয়জুল হক,বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. সোহেল আহমদ চৌধুরী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা হয়েছে।

আসনটিতে বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের প্রার্থী আবদুল বাছিতের মনোনয়ন বাতিল ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) ইউসুফ আহমদের মনোনয়ন স্থগিত করা হয়েছে। (২) সিলেট-২ আসনে মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা হয়েছে আওয়ামী লীগের শফিকুর রহমান চৌধুরী,জাতীয় পার্টির ইয়াহিয়া চৌধুরী,তৃণমূল বিএনপির মো. আবদুল মান্নান খান,জাকের পার্টির মো. ছায়েদ মিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আলতাফুর রহমান সোহেলের। এই আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী ইয়াহিয়া চৌধুরী আয়কর রিটার্নের কাগজ জমা না দেয়ায় সকালে তার মনোনয়নপত্র স্থগিত করা হয়। পরবর্তীতে তিনি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র উপস্থাপন করায় বিকেলে জেলা রিটার্নিং অফিসার তার মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করেন।

এছাড়া আসনটিতে মনোনয়ন স্থগিত রয়েছে জাতীয় পার্টির মাহবুবুর রহমান চৌধুরী ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) মো. মনোয়ার হোসেনের। আরও মনোনয়ন বাতিল হয়েছে বর্তমান সংসদ সদস্য ও গণফোরামের প্রার্থী মোকাব্বির খান, তৃণমূল বিএনপির মো. আবদুর রব,কৃষক শ্রমিক জনতালীগের আবুল কালাম আজাদ,বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. জহির,স্বতন্ত্র প্রার্থী মুহিবুর রহমান, ইকবাল হোসেন ও মোশাহিদ আলীর। মোকাব্বির খানের মনোনয়ন বাতিল প্রসঙ্গে রিটার্নিং কর্মকর্তা শেখ রাসেল হাসান বলেন,প্রার্থী মোকাব্বির খান গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি হিসেবে তার মনোনয়নপত্রে নিজেই সই করেন। কিন্তু তিনি যে দলের নির্বাহী সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন তার কোন প্রমাণ রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে উপস্থাপন করতে পারেননি। যে কারণে তার মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশ অনুযায়ী মেয়র পদে থেকে জাতীয় সংসদ নির্বাচন করার বিধান না থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী বিশ্বনাথ পৌরসভার মেয়র মুহিবুর রহমানের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। (৩) সিলেট-৩ আসনে আওয়ামী লীগের হাবিবুর রহমান হাবিব,জাতীয় পার্টির আতিকুর রহমান আতিক,ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) আনোয়ারা হোসেন আফরোজ,ইসলামী ফ্রন্টের শেখ জাহেদুর রহমান মাসুম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী কফিল আহমদ চৌধুরীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা হয়েছে। মনোনয়ন বাতিল হয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএমএ’র মহাসচিব ডা. ইহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল,মো. ফখরুল ইসলাম,ইসলামী ঐক্যজোটের মো. মইনুল ইসলামের। (৪) সিলেট-৪ আসনে মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা হয়েছে আওয়ামী লীগের ইমরান আহমদ,ইসলামী ঐক্যজোটের মো. নাজিম উদ্দিন কামরান,জাকের পার্টির মো. আলী আকবরের।

স্থগিত হয়েছে তৃণমূল বিএনপির প্রার্থী মো. আবুল হোসেনের। (৫) সিলেট-৫ আসনে মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা হয়েছে আওয়ামী লীগের মাসুক উদ্দিন আহমদ,জাতীয় পার্টির শাব্বীর আহমদ,বাংলাদেশ মুসলীম লীগের (বিএমএল) মো. খায়রুল ইসলাম,তৃণমূল বিএনপির কুতুব উদ্দিন শিকদার,স্বতন্ত্র প্রার্থী আঞ্জুমানে আল ইসলাহর সভাপতি মোহাম্মদ হুছামুদ্দিন চৌধুরী, স্বতন্ত্র প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আহমদ আল কবীর ও বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. বদরুল আলমের। আর মনোনয়ন স্থগিত হয়েছে তৃণমূল বিএনপির কয়ছর আহমদ কাওসারের। (৬) সিলেট-৬ আসেনের সবার মনোনয়ন বৈধ ঘোষাণা করা হয়েছে। এ আসনে বৈধ প্রার্থীরা হলেন; আওয়ামী লীগের নুরুল ইসলাম নাহিদ,জাতীয় পার্টির সেলিম উদ্দিন,তৃণমূল বিএনপির শমসের মবিন চৌধুরী,বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের আতাউর রহমান,ইসলামী ঐক্যজোটের সাদিকুর রহমান,স্বতন্ত্র সরওয়ার হোসেন।

İstifadəçi rəyləri Pin Up casino seyrək göstərilən xidmətlərin keyfiyyətini təsdiqləyir. azərbaycan pinup Qeydiyyat zamanı valyutanı seçə bilərsiniz, bundan sonra onu dəyişdirmək mümkün xeyr. pin-up Bunun üçün rəsmi internet saytına iç olub qeydiyyatdan keçməlisiniz. pin up Además, es de muy alto impacto y de una sadeed inigualable. ola bilərsiniz